• বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০২:৪৩ পূর্বাহ্ন
  • English Version

এবার তেলের গাড়ি ইলেকট্রিক গাড়িতে রূপান্তরের সুযোগ

অটোমোবাইল ডেস্ক / ৩৯ ফেসবুক শেয়ার
আপডেট সময় : বুধবার, ২ মার্চ, ২০২২
international auto mobile news,

ভারতে মিলছে পেট্রোল ও ডিজেল চালিত গাড়ি ইলেকট্রিক গাড়িতে রূপান্তরের সুযোগ ।

দেশটির রাজধানীতে পুরনো পেট্রোল এবং ডিজেল গাড়িকে খুব সহজেই ইলেকট্রিক ভেহিক্যালে রূপান্তরিত করার জন্য বিশেষ কেন্দ্র খোলা হয়েছে। দিল্লি সরকার এরই মধ্যে এই ধরনের বেশ কয়েকটি সেন্টার খুলেছে। যেখানে যে কেউ পুরনো গাড়ি নিয়ে যেতে পারেন। এবং তারসঙ্গে নিয়ে যেতে হবে ইলেকট্রিক গাড়িতে রূপান্তরিত করার জন্য যাবতীয় সরঞ্জাম। তবে সেই সরঞ্জামের সবকিছুই কিনতে হবে দিল্লি সরকারের স্বীকৃত দোকান থেকে।

ভারতের সংবাদ সংস্থা পিটিআই জানিয়েছে,  মোট ১০টি এমন সংস্থা রয়েছে যারা ইলেকট্রিক কারের জন্য সরঞ্জাম তৈরি করে। তাদের কাছ থেকে বিভিন্ন সরঞ্জাম কিনতে পারেন যেকোনো গাড়ির মালিক।

যদি কোনও পেট্রোল চালিত গাড়ির বয়স ১৫ বছরের বেশি হয় এবং ডিজেল গাড়ির বয়স ১০ বছরের বেশি হয় তাহলে সেক্ষেত্রে ওই পুরনো গাড়ি দিল্লির রাস্তার চালানোর জন্য অনুমতি দেওয়া হয় না। সেক্ষেত্রে গাড়িগুলো ফেলে রাখা অথবা বিভিন্ন অংশ আলাদাভাবে বিক্রি করা ছাড়া অন্য উপায় থাকে না। কিন্তু এক্ষেত্রে যে কেউ পুরনো গাড়ি ইলেকট্রিকে পরিবর্তন করে চালাতে পারবেন ভারতবাসী।

বর্তমানে যেসব প্রতিষ্ঠান ইলেকট্রিক কার কনভার্শন কিট বিক্রি করে তার দাম ১০ লাখ রুপিরও বেশি। তাই অতিরিক্ত দামের কারণে অনেকেই সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছেন। যদিও এই পদ্ধতিতে পেট্রোল ও ডিজেলের পুরনো গাড়ি পরিবর্তন করলে অনেকটাই সুবিধা পাওয়া যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। এক্ষেত্রে শুধুমাত্র শক্তিশালী ব্যাটারি এবং আনুসঙ্গিক যন্ত্রপাতি কিনলেই হবে।

দিল্লি সরকার জানিয়েছে, এই পদ্ধতিতে অনেক গাড়ি মালিকই নিজেদের গাড়ি পরিবর্তন করবেন। তাদের সুবিধার জন্যই বিভিন্ন সেন্টার খোলা হয়েছে। সরকার বলছে কোনও গাড়িকে পেট্রোল বা ডিজেল থেকে বৈদ্যুতিক গাড়িতে পরিবর্তন করার পর অবশ্যই পুরো গাড়িটির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হবে। যে প্রতিষ্ঠানের যন্ত্রপাতি দিয়ে জ্বালানি চালিত গাড়ি ই-কারে রূপান্তরিত করা হবে সেসব প্রতিষ্ঠানকে বছরে অন্তত একবার নির্দিষ্ট গাড়ির স্বাস্থ্য পরীক্ষা করতে হবে।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর