• বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:৪২ পূর্বাহ্ন
  • English Version

তেলের দাম কমাতে বাইডেনের পদক্ষেপ

আন্তর্জাতিক ডেস্ক / ৪৩ ফেসবুক শেয়ার
আপডেট সময় : বুধবার, ২৪ নভেম্বর, ২০২১
international news,

দিনকে দিন যুক্তরাষ্ট্রের নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের দাম বেড়েই চলছে। বিশেষ করে তেল এবং গ্যাসের বাড়তি দাম বেশ ভোগাচ্ছে আমেরিকার আমজনতাকে। তেল এবং গ্যাসের দাম সাধ্যের মধ্যে ধরে রাখতে এবার বাইডেন সরকার দেশটির নিজস্ব ভাণ্ডার থেকে পাঁচ কোটি ব্যারেল তেল বাজারে ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

মঙ্গলবার (২৩ নভেম্বর) টুইটারে বাইডেন লিখেছেন, আমেরিকান পরিবারদের জন্য তেল ও গ্যাসের দাম কমাতে এ পদক্ষেপের কথা আজ ঘোষণা করছি। আমেরিকাবাসীর জন্য কৌশলগত মজুত থেকে পাঁচ কোটি ব্যারেল তেল ছাড়বে জ্বালানি মন্ত্রণালয়, যাতে তেল ও গ্যাসের দাম কমানো যায়।

বাইডেনের এ সিদ্ধান্তকে ইতিবাচক হিসেবেই দেখছে সংশ্লিষ্টরা। এতে জ্বালানি তেলের দাম কমবে বলে আশা করছে দেশটির অর্থনীতি বিশ্লেষকরা।

বিনিয়োগকারীদের পরামর্শদাতা সংস্থা এগেন ক্যাপিটালের কর্ণধার জন কিলডাফের মতে, তেলের দাম কমাতে এটি অত্যন্ত সময়োচিত পদক্ষেপ। শীতকালের আগে উৎপাদনের ঘাটতি মেটাতে অতিরিক্ত তেলের এ জোগান সহায়ক হবে।

বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে তেলের দাম বিগত সাত বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ অবস্থায় আছে বলে জানা যায়। দেশটির অটোমোবাইল অ্যাসোসিয়েশন জানিয়েছে, সোমবার (২২ নভেম্বর) ১ গ্যালন তেলের দাম ৩ দশমিক ৪০৯ ডলার ছুঁয়েছে। অথচ বছরখানেক আগেও এর দাম ছিল প্রতি গ্যালন ২ দশমিক ১১ ডলার। বাইডেনের এ ঘোষণার পর এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস আরও প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, তেলের দাম কমাতে প্রয়োজনে অতিরিক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

দেশের অভ্যন্তরে তেলের দাম স্বাভাবিক রাখতে বাইডেনের পথে হাঁটছে চীন, জাপান ও ভারতের মতো অর্থনৈতিকভাবে শক্তিধর দেশগুলো।

যদিও এমতবস্থায় বাংলাদেশের সিদ্ধান্ত কী হবে তা এখনো জানা যায়নি। সম্প্রতি বিশ্ববাজারে তেলের দাম বাড়ায় দেশীয় বাজারে তেলের দাম ২৩ শতাংশ বেড়ে যায়। তেলের দাম বৃদ্ধিতে পরিবহন ভাড়া বৃদ্ধি পেয়েছে ২৭ শতাংশ।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর