• বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১০:২৯ অপরাহ্ন
  • English Version

দেশের পুঁজিবাজারে ৬ খাতে বিদেশী বিনিয়োগের হিড়িক

বিজনেস ডেস্ক / ৩৩ ফেসবুক শেয়ার
আপডেট সময় : সোমবার, ৩ জানুয়ারী, ২০২২
bd business news,

দেশের পুঁজিবাজারে বিদেশী বিনিয়োগ আকর্ষণের মতো পর্যাপ্তসংখ্যক শেয়ারের স্বল্পতা রয়েছে। ফলে হাতে গোনা কিছু কোম্পানি ও খাতেই কেন্দ্রীভূত থাকে বিদেশীদের বিনিয়োগ। গত বছরে দেশের পুঁজিবাজারে ওষুধ, ব্যাংক এবং খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের কোম্পানিগুলোতে বিদেশী বিনিয়োগের পরিমাণ দাঁড়িয়েছে ১৬ হাজার ৫৬২ কোটি টাকায়।

দেশের পুঁজিবাজারের ১৯টি খাতের কোম্পানিতে বিদেশীদের কৌশলগত ও পোর্টফোলিও বিনিয়োগ রয়েছে। এর মধ্যে গত বছরের নভেম্বর শেষে বিদেশীদের কাছে থাকা ওষুধ খাতের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল সবচেয়ে বেশি ৮ হাজার ৪৫৪ কোটি টাকা। যা খাতটির মোট বাজার মূলধনের ১১ দশমিক ৮০ শতাংশ। এ সময়ে খাতটির মোট বাজার মূলধন ছিল ৭১ হাজার ৬৩০ কোটি টাকা।

বিদেশী বিনিয়োগের দিক দিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে রয়েছে ব্যাংক খাত। গত বছরের নভেম্বর শেষে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের হাতে থাকা ব্যাংকের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল ৪ হাজার ৩৫১ কোটি টাকা। যা এ খাতের মোট বাজার মূলধনের ৬ শতাংশ। গত বছরের নভেম্বর শেষে ব্যাংক খাতের মোট বাজার মূলধন ছিল ৭২ হাজার ৩৪১ কোটি টাকা।

গত বছরের নভেম্বর শেষে খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাতের মোট বাজার মূলধন ছিল ৪৪ হাজার ৫৫৮ কোটি টাকা। এর মধ্যে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে থাকা এ খাতের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল ৩ হাজার ৭৫৭ কোটি টাকা। যা এ খাতের মোট বাজার মূলধনের ৮ দশমিক ৪৩ শতাংশ।

বিদেশী বিনিয়োগের দিক দিয়ে চতুর্থ অবস্থানে রয়েছে টেলিযোগাযোগ খাত। গত বছরের নভেম্বর শেষে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের হাতে থাকা এ খাতের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল ১ হাজার ৫৯৯ কোটি টাকা। যা এ খাতের মোট বাজার মূলধনের ২ দশমিক ৩৩ শতাংশ। গত বছরের নভেম্বর শেষে টেলিযোগাযোগ খাতের মোট বাজার মূলধন ছিল ৬৮ হাজার ৭২৮ কোটি টাকা।

গত বছরের নভেম্বর শেষে প্রকৌশল খাতের মোট বাজার মূলধন ছিল ৫৬ হাজার ৯৩ কোটি টাকা। এর মধ্যে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে থাকা এ খাতের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল ৭০৫ কোটি টাকা। যা এ খাতের মোট বাজার মূলধনের ১ দশমিক ২৬ শতাংশ।

বিদেশী বিনিয়োগের দিক দিয়ে ষষ্ঠ অবস্থানে রয়েছে আর্থিক প্রতিষ্ঠান। গত বছরের নভেম্বর শেষে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের হাতে থাকা এ খাতের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল ৪৯৫ কোটি টাকা। যা এ খাতের মোট বাজার মূলধনের ২ দশমিক ১৭ শতাংশ। গত বছরের নভেম্বর শেষে আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর মোট বাজার মূলধন ছিল ২২ হাজার ৮৫৮ কোটি টাকা।

গত বছরের নভেম্বর শেষে জ্বালানি ও বিদ্যুৎ খাতের মোট বাজার মূলধন ছিল ৪৬ হাজার ৯৯১ কোটি টাকা। এর মধ্যে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে থাকা এ খাতের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল ২২৭ কোটি টাকা। যা এ খাতের মোট বাজার মূলধনের দশমিক ৪৮ শতাংশ।

বিদেশী বিনিয়োগের দিক দিয়ে অষ্টম অবস্থানে রয়েছে বস্ত্র খাত। গত বছরের নভেম্বর শেষে বিদেশী বিনিয়োগকারীদের হাতে থাকা এ খাতের শেয়ারের বাজার মূলধন ছিল ২২০ কোটি টাকা। যা এ খাতের মোট বাজার মূলধনের ১ দশমিক ৩৭ শতাংশ। গত বছরের নভেম্বর শেষে বস্ত্র খাতের মোট বাজার মূলধন ছিল ১৬ হাজার ১৪৩ কোটি টাকা।

বিদেশী বিনিয়োগের দিক দিয়ে নবম ও দশম অবস্থানে রয়েছে বিবিধ ও বীমা খাত। এ দুই খাতে গত বছরের নভেম্বর শেষে বিদেশীদের কাছে থাকা শেয়ারের বাজার মূলধনের পরিমাণ ছিল যথাক্রমে ১৭৭ কোটি ও ৯১ কোটি টাকা। এছাড়া সিমেন্ট, তথ্যপ্রযুক্তি, সেবা ও আবাসন, মিউচুয়াল ফান্ড, চামড়া, সিরামিকস এবং ভ্রমণ ও অবকাশ খাতের কোম্পানিগুলোতে কিছু পরিমাণে বিদেশী বিনিয়োগ ছিল।


আপনার মতামত লিখুন :

Comments are closed.

এ জাতীয় আরো খবর